মেনু নির্বাচন করুন

দর্শনীয় স্থান

অনুসন্ধান করুন

# শিরোনাম স্থান কিভাবে যাওয়া যায় যোগাযোগ
আলুটিলা পর্যটন কেন্দ্র

অবস্থানঃ খাগড়াছড়ি শহর থেকে ৮কিঃ মিঃ পশ্চিমে আলুটিলা পাহাড় চূড়ায় আলুটিলা পর্যটন কেন্দ্র।

পর্যটন কেন্দ্রটি খাগড়াছড়ি-চট্টগ্রাম মহাসড়কের পার্শ্বে অবস্থিত হওয়ায় বাস, ট্যাক্সিযোগ যাতায়াত করা যায়।

0

আলুটিলার ঝর্ণা বা রিছাং ঝর্ণা আলুটিলা পর্যটন স্পট থেকে প্রায় ৩কিঃ মিঃ পশ্চিমে (খাগড়াছড়ি থেকে ১১কিঃমিঃ) খাগড়াছড়ি-মাটিরাঙ্গা সড়ক হতে বাম পার্শ্বে ১কিঃ মিঃ দক্ষিণে। মহাসড়ক হতে হেরিংবোন রাস্তায় জীপ, প্রাইভেট কার, মাইক্রোবাস বা পায়ে হেঁটে যাতায়াত করা যায়। 0
আলুটিলার সুড়ঙ্গ বা রহস্যময় সুড়ঙ্গ শহর থেকে ৮কিঃ মিঃ পশ্চিমে আলুটিলা পাহাড় চূড়ায় আলুটিলা পর্যটন কেন্দ্রে এর অবস্হান পর্যটন কেন্দ্রটি খাগড়াছড়ি-চট্টগ্রাম মহাসড়কের পার্শ্বে অবস্থিত হওয়ায় বাস, ট্যাক্সিযোগ যাতায়াত করা যায়। 0
জেলা পরিষদ পার্ক

খাগড়াছড়ি সদর উপজেলা

খাগড়াছড়ি সদর বাসস্ট্যান্ড হতে সিএনজি  যোগে/ টমটম যোগে সরাসরি জেলা পরিষদ পার্ক যাওয়া যায়।

ডিসি পার্ক

ডলু মৌজা, মানিকছড়ি উপজেলা

খাগড়াছড়ি হতে সরাসরি বাসযোগে/ সিএনজি  যোগে মানিকছড়ি উপজেলা গিয়ে মানিকছড়ি বাসস্ট্যান্ড হতে সরাসরি টমটম /  সিএনজি  যোগে ডিসি পার্কে  যাওয়া যায়।

দেবতার পুকুর (দেবতার লেক) খাগড়াছড়ি-মহালছড়ি-রাঙ্গামাটি সড়কে জেলা সদর থেকে ১১কিঃ মিঃ দক্ষিণে মূল রাস্তা হতে ৪কিঃ মিঃ পশ্চিমে সদর উপজেলার নূনছড়ি মৌজায় চির প্রশান্তিময় দেবতার পুকুরের অবস্থান। খাগড়াছড়ি-মহালছড়ি-রাঙ্গামাটি সড়কে জেলা সদর থেকে ১১কিঃ মিঃ দক্ষিণে মূল রাস্তা হতে ৪কিঃ মিঃ পশ্চিমে সদর উপজেলার নূনছড়ি মৌজায় চির প্রশান্তিময় দেবতার পুকুরের অবস্থান। 0
বিডিআর স্মৃতিসৌধ বিডিআর এর জন্ম সম্পর্কিত ঐতিহাসিক স্থানটি রামগড় উপজেলা পরিষদের পাশে ভারতীয় সীমান্তের কাছাকাছি অবস্থিত। বিডিআর এর জন্ম সম্পর্কিত ঐতিহাসিক স্থানটি রামগড় উপজেলা পরিষদের পাশে ভারতীয় সীমান্তের কাছাকাছি অবস্থিত। 0
মায়াবিনী লেক

পানছড়ি উপজেলা

খাগড়াছড়ি হতে  সরাসরি  সিএনজি  যোগে পানছড়ি  উপজেলা অধীন ভাইবোনছড়া হয়ে মায়াবিনী লেক  যাওয়া যায়। 

শান্তিপুর অরণ্য কুটির পানছড়ি উপজেলা হতে চেঙ্গী নদীর অপর তীরে ৫কিঃ মিঃ দক্ষিণে ছোট্ট টিলার উপর এই অরণ্য কুটির।খাগড়াছড়ি জেলা শহর হতে খাগড়াছড়ি-পানছড়ি সড়ক দিয়ে ২৫ কিঃ মিঃ রাস্তা অতিক্রম করে পানছড়ি বাজারে পৌঁছার পর দক্ষিণ দিকের ৫ কিঃ মিঃ পথ অতিক্রম করলেই দেখা যাবে প্রকৃতির বুক পানছড়ি পর্যন্ত পাকা রাস্তা। চেঙ্গীব্রীজ পার হবার পর কিছু অংশ পাকা বাকী অংশ হেরিংবোন। পানছড়ি পর্যন্ত বাসে, অতঃপর কার, জীপযোগে যাওয়া যায়। 0